বিশ্বের সেরা ধনীদের উপাখ্যান


সফলতার আধুনিক মাপকাঠির অন্যতম ভিত্তি হলো অর্জিত সম্পদ। যার পিছনে রয়েছে  বছরের পর বছরের নিরলস কঠোর পরিশ্রম । আপনি যদি অর্থের মাপকাঠির ভিত্তিতে তৈরি করা সফল ব্যক্তিদের তালিকার দিকে তাকান, দেখবেন  সফল ব্যক্তিদের বড় একটি অংশ জুড়ে রয়েছে  শ্রেষ্ট উদ্যেক্তারা। এই শ্রেষ্ট ধনীদের মধ্যে আর্থিক মানদন্ডে শ্রেষ্টত্ব  নিরুপনে ১৯৮৭ সাল থেকে আমেরিকান বিজনেস ম্যাগাজিন ‘ফোর্বস’ প্রতিবছর নীট সম্পদের ভিত্তিতে বিশ্বে শ্রেষ্ট ধনীদের তালিকা প্রকাশ করে যাচ্ছে যা কিনা ইউএস ডলারে মাপা হয়।

২০১৭ সালের জরীপ অনুযায়ী, নীট সম্পদের ভিত্তিতে ধনীদের তালিকায় ২০৪৩ জনের নাম উঠেছে যা কিনা প্রথম বারের মত ২০০০ অতিক্রম করেছে। তারমধ্যে ৫৬ জন ছিলেন চল্লিশ বছরের নীচে  এবং ২২৭ জন  ছিলেন নারী। অক্সফামের রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৭ সালের তালিকাভুক্ত ধনীদের মোট সম্পদের পরিমান ৭.৬৭ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার। এর মধ্যে শীর্ষ আটজন ধনীদের ধারনকৃত মোট সম্পদের পরিমান  সমগ্র মানবজাতির অর্ধেক সম্পদের সমতুল্য। আমরা আজ সংক্ষিপ্ত বিবরনের মাধ্যমে  তেমনই শীর্ষ পাঁচজন ধনীদের জীবনের ধারাবাহিকতার দৃশ্যমান কিছু অংশ তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

বিল গেটস

আমেরিকার বিজনেস ম্যাগনেট, লেখক, বিনিয়োগকারী, মানবসেবার পৃষ্টপোষক এবং মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্টাতা এই ব্যক্তি গত ২৩ বছরের মধ্যে শীর্ষ ধনী হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়েছেন  মোট ১৮ বার। তিনি তার বন্ধু পল এলেনের সাথে  ১৯৭৫  সালে মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠা করে পরবর্তী ২০০০ সাল পর্যন্ত চিপ এক্সজিকিউটিভ অফিসার হিসেবে  দায়িত্ব পালন করেন।   অতঃপর ২০১৪ সালে মাইক্রোসফটের চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে আসেন। বর্তমানে তিনি বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনে কো-চেয়ারম্যান হিসেবে  আছেন যা কিনা এই পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ব্যক্তিগত দাতব্য সংগঠন এবং মাইক্রোসফটের বর্তমান সিইও সত্য নাদেলার প্রযুক্তি উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন।

নীট সম্পদঃ ৯০.৪ বিলিয়ন ইউএস ডলার (ডিসেম্বর, ২০১৭)
বয়সঃ ৬২
স্ত্রীঃ মেলিন্ডা গেটস
কলেজঃ হার্ভাড ইউনিভার্সিটি
জাতীয়তাঃ আমেরিকান
বাসস্থানঃ মেডিনা, ওয়াশিংটন, ইউ এস এ
আয়ের উৎসঃ মাইক্রোসফট (কম্পিউটার সফটওয়্যার কোম্পানী)

ওয়ারেন বাফেট

ওহামার ভবিষ্যত বক্তা হিসেবে খ্যাত ওয়ারেন বাফেটকে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অন্যতম একজন সফল বিনিয়োগকারী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। আমেরিকান  মাল্টিন্যাশনাল  কোম্পানি বার্ক শায়ার হ্যাথওয়ের  মালিক , চেয়ারম্যান এবং সিইও  ওয়ারেন বাফেট। বর্তমানে ষাটটির ও বেশি কোম্পানি বার্কশায়ারের মালিকানাধীনে। আমেরিকান কংগ্রেসম্যান হওয়ার্ড বাফেট এর ছেলে ওয়ারেন বাফেট ১১ বছরে প্রথম শেয়ার কিনেন এবং ১৩ বছরে ট্যাক্স দেন।
তিনি  তার সম্পদের ৯৯ ভাগের অধিক চ্যারিটি তে দান করার  ঘোষনা দিয়েছেন যেখানে ইতিমধ্য প্রায় ৩২ বিলিয়ন ইউএস ডলার চ্যারিটি তে দিয়ে দিয়েছেন। ২০১০ সালে মানব  কল্যানের স্বার্থে তিনি তার বন্ধু বিল গেটসে সাথে গিভিং প্লিজ নামে একটি সংগঠন গড়ে তুলেছেন যা কিনা  বিশ্ব শ্রেষ্ট ধনীদের সম্পদের অর্ধেক মানব সেবায় দানে উৎসাহিত করছে।

নীট সম্পদঃ ৮৫ বিলিয়ন ইউএস ডলার
বয়সঃ ৮৭
কলেজঃ ইউনিভার্সিটি অভ পেনিসেল্ভেনিয়া, ইউনিভার্সিটি অভ নেভরাস্কা, লিংকন, কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটি
স্ত্রীঃ সুসান থম্পসন (মৃত), এস্ট্রিড মেনকস
জাতীয়তাঃ  আমেরিকান
বাসস্থানঃ ওমাহা, নেবরাস্কা,  ইউ এস এ
আয়ের উৎসঃ বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে
পেশাঃ ইনভেস্টর, বিজনেস ম্যাগনেট এবং মানব সেবক

জেফ বেজোস

আমেরিকান  টেকনোলজি এন্ড রিটেইল উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, কম্পিউটার বিজ্ঞানী, মানবহিতৈষী এই ব্যক্তিটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন রিটেইল শপ আমাজন এর প্রতিষ্ঠাতা, চেয়ারম্যান এবং সিইও যা কিনা ১৯৯৪ সালে সিয়াটলে একটি গ্যারেজে প্রতিষ্ঠা করা হয়। আমাজন ওয়েব সাইট অনলাইন বুকস্টোর হিসেবে যাত্রা শুরু করে যা পরবর্তীতে ভিডিও ডাউনলোডিং থেকে শুরু করে ফুড, খেলনা, জুয়েলারি সহ বৈচিত্রমত পণ্য বিক্রি শুরু করে। বর্তমানে  আমাজনের ১৭% মালিকানা বেজোসের।

আমাজনের পাশাপাশি তার নিজস্ব ব্লু অরিজিন নামে এরোস্পেস কোম্পানি আছে যা কিনা পুব্যবহারযোগ্য রকেট উন্নয়নের প্রচেস্টা চালিয়ে যাচ্ছ এবং তা যাত্রী পরিবহনে কাজ করবে। পাশাপাশি ২০১৩ সালে তিনি ২৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলারে আমেরিকার দৈনিক সংবাদ পত্র ওয়াশিংটন পোস্ট কিনে নেন।

নীট সম্পদঃ ৯৮ বিলিয়ন ইউএস ডলার
বয়সঃ ৫৩
কলেজঃ  প্রিন্সিটন ইউনিভার্সিটি 
স্ত্রীঃ ম্যাককেঞ্জি টাটেল
জাতীয়তাঃ আমেরিকান
বাসস্থানঃ টেক্সাস, ইউ এস এ
আয়ের উতসঃ আমাজন, কোম 
পেশাঃ টেকনোলজি এন্ড রিটেইল অন্ট্রোপনার এবং ইনভেস্টর

আমানশিও ওরটেগা

স্প্যানিশ বিজনেস টাইকুন আমাশিও ওরটেগা ইউরোপের  শ্রেষ্ঠ ধনী এবং বিশ্বের সবচেয়ে বেশী সম্পদশালী রিটেইলার। ১৯৭৫ সালে আমাশিও তার স্ত্রী রোজালি মেরার সাথে ইন্ডিটেক্স কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করে যা কিনা একই সাথে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্যাশন গ্রুপ এবং এপারেল রিটেইলার। ইন্ডিটেক্স গ্রুপের মেইন ব্রান্ড 'জারা' যেটাকে কিনা স্প্যানিশ ফ্যাশনের অগ্রদুত বলা হয়।
পাশাপাশি তিনি দ্রুত বর্ধনশীল রিয়েল স্টেট ইন্ডাস্ট্রিতে ইনভেস্ট করেছিলেন যার ভেতরে মাদ্রিদ, বার্সোলোনা, লন্ডন, শিকাগো ও নিউইয়র্কের স্থাপনা ও ছিল।

নীট সম্পদঃ ৭৫ বিলিয়ন ইউ এস ডলার
বয়সঃ ৮১
স্ত্রীঃ  রোজালি মেরা ( ডিভোর্সড) , ফ্লোরা প্যারেজ মারকোট
জাতীয়তাঃ স্প্যানিশ
বাসস্থানঃ স্পেন
আয়ের উতসঃ জারা
পেশাঃ বিজনেসম্যান

মার্ক জাকারবার্গ

হার্ভাড ড্রপ আউট মার্ক ইলিয়ট জাকারবার্গ  ২০০৪ সালে ১৯ বছর বয়সে ফেসবুক  প্রতিষ্ঠা করেন যার আসল উদ্দেশ্য ছিল হার্ভাডে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যকার যোগাযোগ বাড়িয়ে তোলা। অতপর ২০১২ সালে   জাকার্বাগ ফেসবুকের পাবলিক ভার্সন  চালু করেন এবং তিনি বর্তমানে এটার চেয়ারম্যান ও সিইও হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।
মানুষের সম্ভাবনা কে কাজে লাগানোর জন্য এবং সমতা কে অনুপ্রানিত করার জন্য জাকার্বাগ এবং  তার স্ত্রী  তাদের সম্পদের ৯৯ ভাগ দান করে যাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

নীট সম্পদঃ ৭২ বিলিয়ন ইউএস ডলার
বয়সঃ ৩৩
স্ত্রীঃ প্রিসিলা চ্যান
জাতীয়তাঃ আমেরিকান
বাসস্থানঃ পালো আলটো, ক্যালিফোর্নিয়া, ইউ এস এ
আয়ের উৎসঃ ফেসবুক
পেশাঃ  কম্পিউটার প্রোগ্রামার, ইন্টারনেট অন্ট্রপ্রনার